****ঘুরিংফিরিং এর সাথে সুন্দরবন ভ্রমণ****

পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বন সুন্দৱবন অভিযানে যাচ্ছে ঘুরিংফিরিং টিম।

আমাদের ভ্রমনের স্থানঃ

১- হারবাড়িয়া।
২- কোকিলমনী (এিকোনা অইল্যান্ড)
৩- হিরন পয়েন্ট।
৪- দুবলার চর।
৫- করমজল।

সুন্দরবন পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বন। এখানে আপনি পাবেন এক সাথে চার রকম সৌন্দর্য ।

১) নৌ বিহার।
২) ওয়াইল্ড লাইফ।
৩) প্রকৃতি।
৪) সাগর

বাংলাদেশের আর কোথাও নৌযানে করে তিনদিন ভ্রমনের সুযোগ নাই একমাত্র সুন্দরবন ছাড়া, আপনি এখানে সেই সুযোগ পাচ্ছেন সাথে বোনাস হিসাবে পাচ্ছেন প্রকৃতি,ওয়াইল্ড লাইফ, সমুদ্র এই সময় সমুদ্রকে পাবেন আপনার মনের মত করে। আর হ্যাঁ সুন্দরবনে আপনাদের জন্য থাকছে বিশেষ আকর্ষণ হিসাবে বার- বি- কিউ নাইট। আরও সাথে থাকছে অভিজ্ঞ গাইড।

★১ম দিন : নির্ধারিত দিনে ঢাকা থেকে খুলনাগামী বাসে/ট্রেনে করে খুলনা শহরের রয়েল মোড়/রেল স্টেশন থেকে অটোরিক্সাতে করে ৫ মিনিটে জেলখানা ঘাটে সকাল ৭ টার মধ্যে পৌঁছানো। আপনাকে আমাদের ট্যুর গাইড রিসিভ করে ট্রলারে শীপে নিয়ে আসবে। তারপর ফ্রেশ হয়ে সকালের নাস্তা পরিবেশন। জাহাজ মংলা পোর্টে পৌঁছানোর পূর্বে রুপসা ব্রীজ, খুলনা শীপ ইর্য়াড ও রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র দেখা যাবে। দুপুর ১ টা থেকে ২:৩০ মিনিটের মধ্যে আমরা চাঁদপাই ফরেস্ট অফিস পৌছাবো। বন বিভাগের অনুমোদনপত্র ও গার্ড নিয়ে বিকাল ৩:৩০- ৪ টার মধ্যে হাড়বাড়িয়ায় পৌছানো যেখানে বন বিভাগের ইকো ট্যুরিজম স্পট দেখতে পাওয়া যাবে। এরপর বনের ভিতর দিয়ে আমরা শীফে করে এিকোনা আইল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে রাত ১২ টায় পৌছানো এবং রাতে জাহাজে অবস্থান।

★২য়দিন: খুব সকালে ঘুম থেকে উঠে দেশী নৌকায় ক্যানেল ক্রুজিং এবং চুপ থেকে বনের নিস্তব্ধতা উপভোগ করবো৷ এিকোনা আইল্যান্ডের আশ পাশ্বের ক্যানেল গুলো আমরা চুপচাপ থেকে বনের সৌন্দর্য্য উপভোগ করবো। এরপর ফিরবো শীপে সকালের নাস্তা করবো শীপ যাবে হিরণ পয়েন্ট " উদ্দেশ্যে। হিরণ পয়েন্ট গা ছমছমে ছন বনের ভিতর দিয়ে হাটবো। হরিণের পাল মাথা উচু করে আপনাকে দেখেই ছুটে পালাবে এবং আপনি বুঝবেন কেনো এখানকে বাঘের ডাইনিং বলা হয়। ছমছমে ভাব নিয়েই ফিরবো শীপে। শীপে করে যাবো দুবলার চর,মনরম সুন্দর সী বীচে থাকবো সন্ধার পর পর্যন্ত। তারপর ফিরবো শীপে। শীপ চলবে করমজলের উদ্দেশ্যে।

৩য় দিনঃ করমজলে নোনা পানির বাংলাদেশের একমাত্র কুমির প্রজনন কেন্দ্র। ছোট বড় কুমির,বিলুপ্ত প্রায় প্রজাতির কচ্ছপ,বানরের পালের বাদরামি এবং হরিণকে হাত থেকে ঘাস খাইয়ে শীপে ফিরে খুলনা/মংলার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবো। বিঃ দ্রঃ জোয়ার ভাটার কারনে ২/৩ ঘন্টা সময় ব্যবধান হতে পারে।

★ইভেন্ট ফি- ৭৫০০ টাকা (এক রুমে চারজন) কাপল বা টুইন বেড রুমে ৮৫০০ টাকা। শিশু পলিসি : ০-২ বছরের বাচ্চাদের জন্য চার্জ প্রযোজ্য নয়, ৩-৬ বছরের বাচ্চার জন্য ৩৫০০/- প্রযোজ্য।
★ বিদেশীদের জন্যে অতিরিক্ত ৫২০০/- টাকা ফরেষ্ট এন্ট্রি ফি দিতে হবে।
★নিরাপত্তা: নিরাপত্তার ব্যাপারে আমাদের কোন আপোস নেই। আপনাদের নিরাপত্তার জন্য সার্বক্ষনিক নিয়োজিত থাকবে বাংলাদেশ বনবিভাগ থেকে দুই জন সসস্ত্র নিরাপত্তা কর্মী । আবহাওয়া এবং অন্য যে কোন প্রয়োজনে রেডিওর মাধ্যমে ফরেস্ট, কোষ্ট গার্ড এবং নৌ-বাহিনীর সাথে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন।

বুকিং মানি ৫,০০০ টাকা (জনপ্রতি) বুকিং মানি জমা দেওয়ার পদ্ধতিঃ
★ সরাসরি অফিসে এসে জমা দেও্য়া যাবে।
★বিকাশের করা যাবে।
★ ব্যাংক ডিপোজিট করে যাবে। যেকোনো প্রয়োজনে -01731470111 এ কল দিন কিংবা পেইজে মেসেজ দিন।